কুরআনের ছয়দিন সম্পর্কে প্রশ্ন

প্রশ্নোত্তর (Q&A)Category: বিজ্ঞানকুরআনের ছয়দিন সম্পর্কে প্রশ্ন

কুরআনের বিভিন্ন আয়াতে ছয় দিনে পৃথিবী ও আসমানের সৃষ্টির তথ্য উঠে এসেছে। মুফাসসিরগণ এই ছয় দিনের হিসাব সূরা হজ্জের ৪৬ নাম্বার আয়াতের বরাতে বলেছেন ছয় হাজার বছর ( তাফসীর ইবনে কাসির). অনেক ইসলামিস্টই আইয়াম ও আলফ এই দুইটা আরবি শব্দ দিয়ে প্রুফ করার ট্রাই করেন যে "আলফ" দ্বারা নির্দিষ্ট ভাবে এক হাজার বছর না একটা অনির্দিষ্ট সময়কালকেই বুঝায়। কিন্তু ব্যাপারটা একটা হাসান সহীহ হাদিসের সহিত সাংঘর্ষিক। "দরিদ্র মুসলমান ধনীদের চেয়ে অর্ধদিন পূর্বে জান্নাতে প্রবেশ করবে, অর্ধ দিনের পরিমাণ পাঁচশত বছর". এখানে সুস্পষ্ট সালফদের আকিদাও ছিল এই ছয়দিন মাত্র ছয় হাজার বছরই। এটা বৈজ্ঞানিক ভুল। কারণ মহাবিশ্ব সৃষ্টি হতে বিলিয়ন বিলিয়ন বছর লেগেছে। এটা এস্টাবলিশড সাইন্স

anil af replied 7 months ago

সূরা হজ্জ ৪৭ নংআয়াতের তাফসীর,। “হযরত আবূ হুরাইরা (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে যে, রাসূলুল্লাহ (সঃ) বলেছেনঃ “দরিদ্র মুসলমানরা ধনী মুসলমানদের অর্ধদিন পুর্বে (অর্থাৎ পাঁচশ বছর পূর্বে) জান্নাতে প্রবেশ করবে।” (এ হাদীসটি ইবনু আবি হাতিম (রঃ) বর্ণনা করেছেন। জামে তিরমিযী ও সুনানে নাসায়ীতেও এটা বর্ণিত হয়েছে। ইমাম তিরমিযী (রঃ) এটাকে হাসান সহীহ বলেছেন) হযরত আবু হুরাইরা (রাঃ) বলেনঃ “দরিদ্র মুসলমানরা ধনী মুসলমানদের অর্ধদিন পরিমাণ পূর্বে জান্নাতে প্রবেশ করবে।” তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয়ঃ “অর্ধদিনের পরিমাণ কত?” তিনি উত্তরে বলেনঃ “তুমি কি কুরআন পড় ?” জবাবে বলা হয়ঃ “হাঁ, পড়ি। তিনি তখন (আরবী) এ আয়াতটি পড়ে শুনিয়ে দেন। অর্থাৎ “তোমার প্রতিপালকের একদিন তোমাদের গণনায় সহস্র বছরের সমান।” (২২:৪৭) (এটা ইমাম ইবনু জারীর (রঃ) বর্ণনা করেছেন) হযরত সা’দ ইবনু আবি অক্কাস (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে যে, নবী (সঃ) বলেছেনঃ “আল্লাহর কাছে আমি আশা রাখি যে, তিনি আমার উম্মতকে অর্ধ দিন পিছিয়ে রাখবেন।” হযরত সা’দকে (রাঃ) জিজ্ঞেস করা হয়ঃ “অর্ধদিনের পরিমাণ কত?” উত্তরে তিনি বলেনঃ “পাঁচ শ’ বছর।” (এটা আবু দাউদ (রঃ) কিতাবুল মালাহিম-এর শেষে বর্ণনা করেছেন) হযরত ইবনু আব্বাস (রাঃ) এই আয়াতটি পাঠ করে বলেনঃ “এই দিন ঐ দিনগুলির অন্তর্ভূক্ত যে গুলিতে আল্লাহ তাআলা আসমান ও যমীন সৃষ্টি করেছেন। (এটা ইমাম ইবনু জারীর (রঃ) বর্ণনা করেছেন) ইমাম আহমাদ ইবনু হাম্বল (রঃ) কিতাবুর রদ আ’লাল জামিয়্যাহ্ গ্রন্থে এটাকে স্পষ্ট ভাষায় বর্ণনা করেছেন। হযরত মুজাহিদ (রঃ) বলেন যে, এই আয়াতটি নিম্নের আয়াতটির মতইঃ (আরবী) অর্থাৎ “তিনি আকাশ হতে পৃথিবী পর্যন্ত সমুদয় বিষয় পরিচালনা করেন, অতঃপর একদিন সমস্ত কিছুই তাঁর সমীপে সমুখিত হবে যে দিনের পরিমাণ হবে তোমাদের হিসেবে হাজার বছরের সমান।” (৩২:৫) ইমাম মুহাম্মদ ইবনু সীরীন (রঃ) আহলে কিতাবের একজন নও মুসলিম হতে বর্ণনা করেছেনঃ “আল্লাহ তাআলা আসমান ও যমীনকে ছয় দিনে সৃষ্টি করেছেন এবং একদিন তোমার প্রতিপালকের নিকট এক হাজার দিনের সমান যা তোমরা গণনা করে থাকে। আল্লাহ তাআলা দুনিয়ার আয়ুষ্কাল রেখেছেন ছয় দিন। সপ্তম দিনে কিয়ামত হবে। আর একদিন হাজার দিনের সমান। সুতরাং ছয়দিন তো কেটেই গেছে। এখন তোমরা সপ্তম দিনে রয়েছে। এখন তো অবস্থা ঠিক গর্ভবতী নারীর মত যার গর্ভ পূর্ণ দশ মাসের হয়ে গেছে। জানা যায় না কোন ক্ষণে সে সন্তান প্রসব করে!”
১.এখান থেকে বুঝা যায় সাহাবী ইবনে আব্বাস ও তাবেয়ী মুজাহিদ এর মতে এই দিন গুলা অবশ্যই আসমান যখন যমীন সৃষ্টির ছয় ইয়াওম।”
২. এই ছয় ইয়াওমের দৈর্ঘ্য সুনির্দিষ্ট এক হাজার বছরই।
৩. আবু দাউদের কিতাবুল মালাহিমেও আছে, উম্মতকে অর্ধদিন পিছিয়ে রাখার বিষয়টিতে অর্ধদিন অর্থ পাচশ বছর।
৪।ইবনে কাসিরও উক্ত মত ব্যাক্ত করেন মহাবিশ্ব মাত্র ছয় হাজার বছরের সৃষ্টি হয়েছে।
৫. ইবনে আশুরের গোজামিল মিলে না, কারণ আয়াতটিতে সুস্পষ্ট ভাবে বলা হয়েছে মানুষের গননায় এক হাজার বছরই। এখন মানুষ গননা করতে গেলে এক হাজার বছরই গুনবে। হাজার হাজার বছর গুনবেনা।

Tahsin Arafat Staff replied 7 months ago

তা সপ্তম দিনে যদি থাকি, আর আমাদের সাধারণ হিসাবের এক হাজার বছর হলে সপ্তম দিন তো কতো আগেই পার হয়ে যাওয়ার কথা! তাবেঈদের কথা হুজ্জাত নয়, সাহাবীদের কথা হুজ্জাত। ইবনু আব্বাস রাঃ থেকে কি সহিহ সনদে প্রমাণিত যে সেই এক দিন আমাদের এক হাজার বছর?

1 Answers
On behalf of the authors answered 8 months ago

এসব সোকল্ড এস্টাবলিশড সাইন্সগুলো পরিবর্তন হয় কি করে? আর সেগুলো পরিবর্তন হয় যেহেতু সেহেতু কিসের ভিত্তিতে এগুলোকে এস্টাবলিশড সাইন্স বলা হয়? উল্টা পাল্টা জিনিস কি নাস্তিকরা খেয়ে এসব মন্তব্য করে নাকি বিজ্ঞানীরা খেয়ে এই জাতীয় কোন দাবি করেছে?

আর আপনি যে বিভিন্ন যুক্তি দেখিয়ে দাবি করলেন ‘অনেকে যে বলে আইয়াম ও আলফ একটা নির্দিষ্ট সময়কাল’ এটা সরাসরি কোরআন ও সহিহ হাদিসের বিরোধী এই দাবিটা কি কোন সালাফ করেছিলেন? কোন মুফাস্সির করেছিল? এটার মানে যে সময়কাল, পর্যায় কালও হতে পারে তাতো খোদ মুফাস্সির গনই বর্ণনা করে গিয়েছেন, শুধু মডার্ন যুগের মুফাস্সিরই নয় বরং অতিতের বহু মুফাস্সিরগণও এই ব্যখ্যা করেছিলেন। তাহলে আপনি নতুন করে কিসের ভিত্তিতে বলছেন এটা কোরআন ও সহিহ হাদিসের সাথে সংঘর্সিক? কোরআনের ব্যখ্যা কি এখন বর্তমানের ব্রেনলেস নাস্তিকরা অতিতের মুফাস্সিরদের থেকেও বেশি বুঝা শুরু করল নাকি? এছাড়া এই আয়াতে কি আল্লাহ বলেছেন যে সেই দিন কি আল্লাহর দিন নাকি ফেরেস্তাদের দিন নাকি মানুষের দিন নাকি অন্য কিছুর দিন? বলেছেন একবারও? সহিহ হাদিসে কি সুস্পষ্ট বলে বলা হয়েছে যে এই ৬ দিনের প্রতিদিন মানে হচ্ছে এক হাজার বছর? বলা হয়েছে? যদি না বলা থাকে তাহলে কিসের ভিত্তিতে বলছেন এই মত কোরআন ও হাদিসের সাথে সাংঘর্সিক?

আপনারা না আকল ব্যবহার করেন, না কমন সেন্স ব্যবহার করেন, না ব্রেন ব্যবহার করেন, না জানার চেষ্টা করেন, না পড়ার চেষ্টা করেন। যেটা ইচ্ছা সেটা দাবি করে বসে থাকেন, আপনাদের উচিৎ আগে আপনারা নিজেদের ব্রেনের চিকিৎসা করানো, তারপর এসব দাবি করতে আসা।

সালাফদের ও ওলামাদের আকিদা যে শুধু এটাই ছিল যে এই ৬ দিনের প্রতিদিন এক হাজার বছর করে এই তথ্যা কি নাস্তিকরা ওহির মাধ্যমে পেয়েছে? যদি ওহি না আসে তাদের কাছে তাহলে এই দাবির প্রমান কি? আছে কোন প্রমান? মনে হয় না, কারন বেশির ভাগ সময়ই কাফেররা অগ্রহনযোগ্য হাদিস ও নিজেদের মনগড়া কথাকে ইসলামের নামে চালিয়ে দেয় ও তা দিয়ে ইসলামের উপর অভিযোগ বা বিভিন্ন সেন্সহীন দাবি করে। যাইহোক কথা মনে কষ্ট পেলে দুঃখিত, কিন্তু যদি নিছক প্রশ্ন হত তাহলে হয়তো আরেকটু সুন্দর করে উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করা যেত। কিন্তু নিজের মনগড়া কিছু দাবি করায় এই ভাবেই উত্তর দিতে বাধ্য হয়েছি। এছাড়া আরো জানতে দেখতে পারেন -

https://response-to-anti-islam.com/show/আল্লাহর-একদিন-মানুষের-কয়দিনের-সমান--/87 ;

https://response-to-anti-islam.com/show/বিগ-ব্যাং-অনুযায়ী-মহাবিশ্ব-সৃষ্টি-হতে-কয়েক-মিলিয়ন-বছর-সময়-লেগেছে;-তাহলে-কুরআন-কেন-বলল-আকাশ-ও-পৃথিবী-তৈরি-হতে-৬-দিন-লেগেছে--/67 ;

https://islamicauthors.com/article/398 ;

https://islamicauthors.com/article/5 ;

https://bn.quora.com/আল্লাহ-যদি-হও-বললেই-সব-হয়ে ;

https://bn.quora.com/আল্লাহ-যদি-পৃথিবী-ও/answers/308042298 ;

https://at-tahreek.com/article_details/8900 ;

https://islamqa.info/en/answers/31865/were-the-heavens-and-the-earth-created-in-six-days-or-eight ;

https://islamqa.info/en/answers/20613/why-did-allaah-create-the-heavens-and-the-earth-in-six-days-when-he-is-able-to-have-created-it-in-less-time ;

https://islamqa.info/en/answers/187655/tafseer-of-the-verse-indeed-your-lord-is-allah-who-created-the-heavens-and-the-earth-in-six-days-al-araaf-754-and-a-discussion-about-the-length-of-the-day-in-this-case ;

https://islamqa.org/hanafi/seekersguidance-hanafi/31925/did-allah-literally-create-the-world-in-6-days/ ;

https://islamqa.org/hanafi/askimam/127429/fact-or-fiction-analysing-the-idea-of-the-universe-being-created-in-6-days/ ;

https://www.islamweb.net/en/fatwa/267256/the-six-days-in-which-allaah-created-the-heavens-and-the-earth-are-not-like-our-days

Back to top button