ইসলামবিরোধীদের প্রতি জবাব

কিতাব আল উম ৩৩৩/৭৭, পৃষ্ঠা ২২৩৪ – একটি প্রোপাগান্ডা

কাফেরদের মিথ্যাচার-প্রোপাগান্ডার তো শেষ নেই। অপব্যাখ্যার পাশাপাশি নিত্যনতুন বানোয়াট তথ্য হাজির করাতেও উস্তাদ তারা।

রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর প্রতি বিদ্বেষ তো আজকে থেকে নয়, সেই রাসূলের সময় থেকেই। না রাসূলকে কখনো মিথ্যা সাব্যস্ত করত্র পেরেছে, না পাগল সাব্যস্ত করেছে, বরং মক্কার মুশরিকরা রাসূলকে জাদুকর বলে বেড়াতো। কারণ, আল্লাহর বাণী শোনে তাদের শিরকে ভরা অন্তর দুমড়ে-মুচড়ে যেতো।

তো যাই হোক, মূল প্রসঙ্গে আসি। ১-২ বছর ধরে বঙ্গীয় নাস্তিক-সনাতনী হিন্দুরা ইমাম শাফিঈ (রহঃ) এর রেফারেন্স টেনে রাসূলুল্লাহর নামে এক জঘন্য অভিযোগ করছে। তাদের প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে দিচ্ছে বিভিন্ন ব্লগ, ফেইসবুক গ্রুপ ইত্যাদিতে। কিছুদিন আগে একজন কুখ্যাত বাংলাভাষী নাস্তিককেও তার ব্লু ব্যাজধারী পেইজ থেকে উক্ত প্রোপাগান্ডা চালাতে দেখেছি। আসুন আগে দেখে নিই ব্যাপার কী?

কিতাব আল উম ৩৩৩/৭৭, পৃষ্ঠা ২২৩৪ – একটি প্রোপাগান্ডা কিতাব আল উম ৩৩৩/৭৭, পৃষ্ঠা ২২৩৪ – একটি প্রোপাগান্ডা কিতাব আল উম ৩৩৩/৭৭, পৃষ্ঠা ২২৩৪ – একটি প্রোপাগান্ডা

তারা আবার “আরবি ইবারত” সহ উল্লেখ করেছে। আসুন হুবহু উল্লেখ করিঃ

/* আরো একটু গভীরে যাই,
কিতাব আল উম – ৩৩৩/৭৭ , পৃষ্ঠা নং ২২৩৪ ।
ثم عاد رسول الله صلى الله عليه وسلم إلى خيمته ومارس الجنس مع تيس. ثم خرج من الخيمة وقال للتلاميذ: “جاءني الشيطان على شكل تيس. فقتلوا التيس”.
অতঃপর আল্লাহর নবী নিজের তাবুতে ফিরে গেলেন এবং তারপর তিনি একটি ছাগলের সঙ্গে যৌন মিলন করলেন । অতঃপর তিনি তাবু থেকে বাইরে এলেন এবং সাহাবীদের উদ্দেশ্যে বললেন ছাগলের রুপে শয়তান আমার কাছে এসেছিলো , তােমরা ছাগলটিকে হত্যা করে ফেলাে। অউ : ৩৩৩ / ৭৭ , পৃষ্ঠা 2234 */

আসুন এবার পর্যায়ক্রমে বিশ্লেষণ করে দেখা যাক।

সনদ

রেফারেন্স চেকিং

কিতাব আল উম  (كتاب الأم) ইমাম শাফিঈ (রহঃ) সংকলিত একটি কিতাব। এখানে দারুল ফিকর, বৈরুত থেকে প্রকাশিত সর্বশেষ বিন্যাসে (২০০৯) ৮ খণ্ডে সমাপ্ত হয়েছে।[1]মাক্তাবাতুশ-শামেলা তে অনলাইন ভার্শন চেক করতে পারেন https://shamela.ws/book/1655 এবং দারুল ওয়াফা থেকে প্রকাশিত বিন্যাসে ১১ খণ্ডে সমাপ্ত হয়েছে।[2]https://www.noor-book.com/%D9%83%D8%AA%D8%A7%D8%A8-%D8%A7%D9%84%D8%A7%D9%85-%D9%84%D9%84%D8%A7%D9%85%D8%A7%D9%85-%D8%A7%D9%84%D8%B4%D8%A7%D9%81%D8%B9%D9%8A-pdf

কোনো প্রকাশনী থেকে কোনো ভাবেই ৩৩৩ টা খণ্ড প্রকাশিত হয় নি। আমরা যদি এখানে প্রচারকের অনিচ্ছাকৃত ভুল হিসেবে ৭৭/৩৩৩ ও বিবেচনা করি, তাহলেও কোথাও ৭৭ টি খণ্ডও প্রকাশিত হয় নি।

আমরা খুঁজে পাইনি

তো যা হোক, উক্ত আরবি ইবারতটি তো দূরে থাক, এর আশেপাশের কিছুও আমরা কিতাবুল উমে খুঁজে পাইনি। এমনকি অন্য কোনো কিতাবেও পাইনি।

আপনারা খুঁজে পেলে পাঠিয়ে দেওয়ার অনুরোধ রইলো।

মতন

এটি ব্যাকরণের দিক দিয়ে বানোয়াট

এখানে আরবি ইবারতটিতে সাহাবী বোঝাতে ‘তিলমিয’ শব্দ ব্যবহার হয়েছে দেখুন,

/* ثم عاد رسول الله صلى الله عليه وسلم إلى خيمته ومارس الجنس مع تيس. ثم خرج من الخيمة وقال للتلاميذ: “جاءني الشيطان على شكل تيس. فقتلوا التيس”.

অতঃপর আল্লাহর নবী নিজের তাবুতে ফিরে গেলেন এবং তারপর তিনি একটি ছাগলের সঙ্গে যৌন মিলন করলেন । অতঃপর তিনি তাবু থেকে বাইরে এলেন এবং সাহাবীদের উদ্দেশ্যে বললেন ছাগলের রুপে শয়তান আমার কাছে এসেছিলো , তােমরা ছাগলটিকে হত্যা করে ফেলাে ।*/

তিলমিয (تلميذ/ تلاميذ) শব্দটি একটি আধুনিক শব্দ। এর অর্থ ছাত্র/ছাত্ররা[3]https://en.m.wiktionary.org/wiki/%D8%AA%D9%84%D9%85%D9%8A%D8%B0। এই শব্দ দিয়ে কোনো হাদিসও নেই, সহিহও না যঈফও না, সলফে সালেহীন এই শব্দ ব্যবহার করেছেন, এবং সাহাবীদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছেন – এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায় না। অর্থাৎ, স্পষ্টত এই লেখাটা বানোয়াট। ইমাম শাফিঈ (রহঃ) যদি লিখে থাকতেন তাহলে আসহাব/সাহাবী জাতীয় শব্দ ব্যবহার করতেন।

আবার এখানে সহবাস বোঝাতে ‘মারাসা’ শব্দ ব্যবহৃত হয়েছে,

/* ثم عاد رسول الله صلى الله عليه وسلم إلى خيمته ومارس الجنس مع تيس. ثم خرج من الخيمة وقال للتلاميذ: “جاءني الشيطان على شكل تيس. فقتلوا التيس”.

অতঃপর আল্লাহর নবী নিজের তাবুতে ফিরে গেলেন এবং তারপর তিনি একটি ছাগলের সঙ্গে যৌন মিলন করলেন */

সহবাসকে আরবি প্রাচীন ব্যাবহার (الاتيان) ইতইয়ানু, (مجامعة) মুজামায়াত, (الوطئ) ওতি বলা হয়। কিন্তু মুমারাসা শব্দটা আধুনিক। (এখানে মারাসা মানে যে সহবাস করলো, এর মূল শব্দ মুমারসা) তাই স্পষ্টত উক্ত লেখা বানোয়াট। মুমারসা বলতে, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যেকার ভালোবাসাপূর্ণ যৌনমিলন বোঝায়। কিন্তু পশুর সাথে সবসময় ধর্ষণই করতে হয়। আর বলাৎকার বলতে আবার আরবিতে ভিন্ন শব্দ!এগতেসব (الاغتصاب) শব্দ ব্যবহার না হওয়াও প্রমাণ করে এটা বানোয়াট।

(ماغز) মাগেয হলো বকরির আরবি প্রতিশব্দ।
আর ওখানে ব্যবহৃত শব্দ হলো তিস (تيس) যা পুরুষ বকরিকে বোঝায়। জাল করতে গিয়েও মুর্খতা! শয়তানের কি পাঠার রূপ ধরে যাবে? নাকি ছাগীর রূপ ধরে? সাধারণ কান্ডজ্ঞান থাকলে বলবে এখানে মহিলা ছাগলের কথাই বলা হচ্ছে।

আসলে ব্যাপারটা হলো, এটা বাংলায় লিখে ইসলামবিদ্বেষীরা Google Translator/Microsoft Translator দিয়ে আরবি বানিয়েছে। তারপর ছড়িয়ে দিয়েছে চামচাদের মাধ্যমে।

ইসলামের বিরুদ্ধে

ইসলামে পশুকাম হারাম। এর শাস্তি মৃত্যুদণ্ড পর্যন্ত বলেছেন ফুকাহায়ে কেরামগণ। এর মাধ্যমেও প্রমাণ হয় উক্ত প্রচারটি বানোয়াট। এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত জানার জন্য আমার পূর্ব পোস্ট দেখুনঃ


শেষ করছি দুটো ইসলামী দলিল দিয়ে

গ্রন্থঃ সুনান আবূ দাউদ (তাহকিককৃত)
অধ্যায়ঃ ৩৬/ শিষ্টাচার (كتاب الأدب)
হাদিস নম্বরঃ ৪৯৯২

৮৮. মিথ্যাচার সম্পর্কে কঠোরতা

৪৯৯২। আবূ হুরাইরাহ (রাঃ) সূত্রে বর্ণিত। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ কোনো ব্যক্তির মিথ্যাবাদী সাব্যস্ত হওয়ার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট যে, সে কোনো কথা শোনামাত্রই (যাচাই না করে) বলে বেড়ায়।[4]সুনানে আবু দাঊদ ৪৯৯২, সহিহুল মুসলিম, মুস্তাদরাকে হাকিম। হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih) http://www.hadithbd.com/hadith/link/?id=62355

আব্দুল্লাহ (রাঃ) সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ তোমরা মিথ্যাচার বর্জন করো। কেননা মিথ্যা পাপাচারের দিকে ধাবিত করে এবং পাপাচার জাহান্নামে নিয়ে যায়। কোনো ব্যক্তি সর্বদা মিথ্যা বলতে থাকলে এবং মিথ্যাচারকে স্বভাবে পরিণত করলে শেষ পর্যন্ত আল্লাহর নিকট তার নাম মিথ্যুক হিসেবেই লেখা হয়। আর তোমরা অবশ্যই সততা অবলম্বন করবে। কেননা সততা নেক কাজের দিকে পথ দেখায় এবং নেক কাজ জান্নাতে নিয়ে যায়। আর কোনো ব্যক্তি সর্বদা সততা বজায় রাখলে এবং সততাকে নিজের স্বভাবে পরিণত করে, শেষ পর্যন্ত আল্লাহর নিকট তার নাম পরম সত্যবাদী হিসেবে লিপিবদ্ধ হয়।[5]সুনানে আবু দাঊদ ৪৯৮৯ http://www.hadithbd.com/hadith/link/?id=62352

জাজাকাল্লাহ খাইর…

    Footnotes

    Footnotes
    1মাক্তাবাতুশ-শামেলা তে অনলাইন ভার্শন চেক করতে পারেন https://shamela.ws/book/1655
    2https://www.noor-book.com/%D9%83%D8%AA%D8%A7%D8%A8-%D8%A7%D9%84%D8%A7%D9%85-%D9%84%D9%84%D8%A7%D9%85%D8%A7%D9%85-%D8%A7%D9%84%D8%B4%D8%A7%D9%81%D8%B9%D9%8A-pdf
    3https://en.m.wiktionary.org/wiki/%D8%AA%D9%84%D9%85%D9%8A%D8%B0
    4সুনানে আবু দাঊদ ৪৯৯২, সহিহুল মুসলিম, মুস্তাদরাকে হাকিম। হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih) http://www.hadithbd.com/hadith/link/?id=62355
    5সুনানে আবু দাঊদ ৪৯৮৯ http://www.hadithbd.com/hadith/link/?id=62352
    4.3 3 votes
    Article Rating
    Subscribe
    Notify of
    guest
    1 Comment
    Oldest
    Newest Most Voted
    Inline Feedbacks
    View all comments
    বোকা নাস্তিক
    বোকা নাস্তিক
    1 month ago

    এটা হেদূদের অপপ্রচার। তাদের দেবতা ব্রম্মা নাকি জগতের কল্যাণের জন্য একটা গরুর সাথে সঙ্গম করেছিল

    Back to top button