হাদীস নিয়ে সংশয়

প্রশ্নোত্তর (Q&A)Category: ইসলামহাদীস নিয়ে সংশয়
MD King khan asked 10 months ago
  1. বুখারী 608 no হাদীস এ আযানের সময় শয়তান বায়ু ছাড়ে মর্মে উল্লেখ আছে, এটি কি আক্ষরিক অর্থেই নাকি রূপক ভাবে
    যৌক্তিক explanation দিবেন
  2. আরেকটি প্রশ্ন : Gajwatul হিন্দ এর হাদীস গুলো কি সহিহ নাকি জইফ? এই যুদ্ধ কবে হবে?
  3. ফোরাত নদী ও স্বর্ণের পাহাড় এর হাদীস টির প্রকৃত অর্থ কি? ফোরাত নদীর নিচে কোনো স্বর্ণের পাহাড় আছে কিনা
2 Answers
Best Answer
Tahsin Arafat Staff answered 10 months ago
  1. (أَدْبَرَ الشَّيْطَانُ وَلَه ضُرَاطٌ) ‘‘শায়ত্বন (শয়তান) পিঠ ফিরিয়ে পালায় ও বায়ু ছাড়তে থাকে।’’ শায়ত্বন (শয়তান) দ্বারা উদ্দেশ্য ইবলীস ও তার সমজাতীয় জিন্। মলদ্বার দিয়ে বায়ু নির্গত হওয়াকে ضُرَاطٌ বলা হয়। প্রকৃতপক্ষেই শায়ত্বনের (শয়তানের) মলদ্বার দিয়ে বায়ু নির্গত হতে পারে। কেননা মানুষের যেমন শরীর আছে শায়ত্বনেরও তদ্রূপ শরীর আছে, তারা পানাহারও করে থাকে। অতএব তাদের বায়ু নির্গত হওয়া সম্ভব। আর এ বায়ু নির্গত হওয়ার কারণ এই যে, আযানের শব্দ শ্রবণ করার ফলে তাদের অন্তরে ভীষণ ভয়ের সৃষ্টি হয়। আর এ ভয়ের কারণেই তাদের অনিচ্ছায়ই এ বায়ু নির্গত হয়। ‘আল্লামা মুল্লা ‘আলী আলক্বারী বলেনঃ গাধার বোঝা বেশী ভার হওয়ার কারণে বোঝা বহনের সময় যেমন তার মলদ্বার দিয়ে বায়ু নির্গত হয় তেমনি আযানের শব্দ শায়ত্বনের জন্য সহ্য শক্তির চাইতে ভার হওয়ার কারণে তার বায়ু নির্গত হয়। এটাও বলা হয়ে থাকে যে, শায়ত্বন ইচ্ছাকৃতভাবেই এ সময় বায়ু ছাড়ে যাতে এ বায়ুর আওয়াজের কারণে আযানের শব্দ তার কানে না পৌঁছে। (حَتّى لَا يَسْمَعَ التَّأْذِينَ) ‘‘যাতে আযানের শব্দ তার কানে না পৌঁছে’’ এ বাক্য দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, আযানের শব্দ উচ্চৈঃস্বরে হওয়া মুস্তাহাব।
    -- মিশকাতুল মাসাবিহ ৬৫৫ নং হাদিসের ব্যাখ্যা (হাদিস একাডেমী) https://www.hadithbd.com/hadith/link/?id=55212
Ashraful Nafiz Staff answered 10 months ago

(২) গাজওয়ায়ে হিন্দ সম্পর্কে বেশির ভাগ হাদিস জয়িফ হলেও কিছু সহিহ হাদিস রয়েছে। হিন্দের উপর আগে একবার আক্রমন হয়েছিল যা ইতিহাস হতে প্রমানিত। তারপরও ওলামাদের মাঝে মতভেদ রয়েছে এই নিয়ে, কারো মতে এই যুদ্ধ হয়ে গিয়েছে আর নতুন করে হওয়ার কিছু নেই, আবার কারো মতে ফাইনাল যুদ্ধ হওয়া বাকি। আল্লাহই ভালো জানেন https://youtu.be/fWCR8rIMVOQ?si=iwaaVP-W9o4XbL-g

(৩) ফুরাত নদীর হাদিসের ব্যপারে আগের হাদিস বিশারদ গণ আক্ষরিক অর্থ গ্রহন করেছিলেন।ইদানিং কিছু আলেমের মতে এটা রূপক অর্থেও হতে পারে, তাদের মতে হাদিসে বলা সম্পদ খনিজ তেল বা অন্য কোন মূল্যবান খনিজ সম্পদ বা মূলবান অন্য কিছুও হতে পারে। আল্লাহই ভালো জানেন https://at-tahreek.com/site/show/1798

Back to top button