সাহাবী ইবনে মাসাউদ এর ভাতা বন্ধ করে দেওয়ার কারন কি?

প্রশ্নোত্তর (Q&A)Category: ইসলামসাহাবী ইবনে মাসাউদ এর ভাতা বন্ধ করে দেওয়ার কারন কি?
বলতে চাইনা asked 7 months ago
উইকিপিডিয়ার মাধ্যমে (যদিও উইকিপিডিয়া কোন নির্ভরযোগ্য দলিল নয়) আমরা জানতে পারি, সাহাবী ইবনে মাসাউদ (রা) উসমানী মুসাফের বিরোধিতা করছিলেন। এইজন্য উসমান (রা) তাকে মদিনায় ডেকে অপমান করতে চাইছিলেন যেটা উম্মুল মুমিনি আয়েশা (রা) এর হস্তক্ষেপে বন্ধ হয়। সাহাবী ইবনে মাসাউদ (রা) এর পেনশন ও বন্ধ করে দেন খলিফা উসমান (রা)। এই ঘটনা গুলা কি আদৌ সত্য? Wikipedia :history of quran
1 Answers
Ashraful Nafiz Staff answered 6 months ago

কুরআন সংকলনের ব্যাপারে ‘আবদুল্লাহ ইবনু মাস'উদ(রা.) উসমান (রা.)-এর বিরোধিতা করেছিলেন এমন কোন বিষয় বিশুদ্ধ সূত্রে বর্ণিত হয়নি। এই ধরনের কল্পিত কাহিনীর উৎস হল দুর্বল রিওয়ায়াত। অবশ্য সবক’টি দুর্বল রেওয়ায়াতে এটাও বলা হয়েছে যে, ইবনু মাসউদ(রা.) সাহাবায়ে কিরামের ঐকমত্যের সিদ্ধান্তের দিকে ফিরে আসেন। শুধু তাই নয় তিনি এ বিষয়ে সাধারণ্যে ঘোষণাও প্রদান করেন এবং লোকদেরকে ঐকমত্যের সিদ্ধান্ত মেনে নেয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, “আল্লাহ টেনেহিচড়ে 'ইলম উঠিয়ে নেবেন না, বরং তিনি ‘আলিমগণের তিরোধানের মাধ্যমে ‘ইলম উঠিয়ে নেবেন। উম্মতে মুহাম্মাদ ভ্রান্তির ওপর ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিষ্ঠিত থাকতে পারে না। তাঁরা যে বিষয়ে একমত হয়েছেন সত্য অবশ্যই সেখানে থাকবে।” [28] এই বক্তব্যটুকু ইবনু মাসউদ (রা.) লিখিতভাবে উসমান (রা.)-কে অবহিত করেন। ইবনু কাসীর(র.) ইবনু মাসউদের(রা.) ঐকমত্যে ফিরে আসার কথা উল্লেখ করেছেন। [29] আয-যাহাবী(র.) জোর দিয়ে বলেন, “শেষাবধি উসমান (রা.)-এর কর্মপদ্ধতিতে ইবনু মাসউদ (রা.) সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এবং তাঁর আনুগত্য স্বীকার করেছেন।” [30]

কুরআন সংকলন ও উসমান (রা.)-এর সাথে ইবনু মাসউদের সম্পর্ক বিষয়ে তাহা হুসাইন কিছু উদ্ভট কথা বলেছেন। তিনি প্রাচ্যবিদদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে এমন মন্তব্য করেছেন। কিছু লেখক আছেন যারা দুর্বল ও ইমামিয়া (শিয়া) বর্ণনার ওপর ভিত্তি করে সাহাবায়ে কিরামের পারস্পরিক সম্পর্কের ব্যাপারে মনগড়া মন্তব্য করেছেন।

ইবনু মাসউদ(রা.), যিনি মতভেদ ও ফিতনার ভয়ে এবং খালিফার আনুগত্য প্রদর্শনের জন্য মিনায় নামায কসর না করে পূর্ণরূপে আদায় করেছেন, তিনি মিম্বারে আরোহন করে খালীফার বিরুদ্ধে উস্কানি দিয়েছেন- এটা যুক্তিযুক্ত নয়।” [31]

কতিপয় ঐতিহাসিক ইবনু মাসউদের (রা.) নামে মিথ্যারোপ করেছেন এবং সাহাবায়ে কিরামের পারস্পরিক সম্পর্কের ব্যাপারে বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য রেখেছেন। এইসব বর্ণনা সুস্থ বিবেকের কাছে অগ্রহণযোগ্য। কেউ কেউ মিথ্যামূলকভাবে বলেছেন, ইবনু মাসউদ (রা.), উসমান (রা.)-কে কাফির সাব্যস্ত করেছেন এবং খালীফাও তাকে প্রহারের নির্দেশ দিয়েছেন। এটি একটি চরম মিথ্যাচার; বর্ণনার পণ্ডিতগণ জানেন যে, ইবনু মাসউদ (রা.) খালীফাকে কাফির প্রতিপন্ন করেননি। বরং উসমান (রা.)-এর হাতে বাই'আত করার পর তিনি মাদীনা হতে কূফা গমন করেন। সেখানে পৌছে তিনি আল্লাহর প্রশংসা করে জনগণের উদ্দেশ্যে বললেন, “আমিরুল মু'মিনীন উমার ইবনুল খাত্তাব (রা.) মারা গেছেন, আমরা সাহাবায়ে কিরাম ঐকমত্যের ভিত্তিতে উসমান (রা.)-এর হাতে বাই'আত করেছি।" [32]

সূত্রঃ- আল কুরআন সংকলন ও সংরক্ষণের বিস্তারিত ইতিহাস

সৌদির একটি বিখ্যাত নিউজ পোর্টালের একটি প্রতিবেদনেও এই বিষয়ে বলা হয়েছে উসমান (রা) আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদকে প্রহার করেছিলেন, তার ভাতা বন্ধ করে দিয়েছিলেন এই জাতীয় প্রতিবেদনগুলো সঠিক নয়। [ https://www.arabnews.com/node/235217 ] এছাড়া আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদকে অপমান করা, শাস্তি দেওয়া, ভাতা বন্ধ করে দেওয়ার কোন ঘটনাই গ্রহনযোগ্য কোন সূত্রে আসে নি, বরং বেহু ওলামা, ইতিহাসবিদ এসবকে মিথ্যা বলে আখ্যায়িত করেছেন। [ https://mahajjah.com/section-two-iii-accusations-in-his-manner-of-dealing-with-those-sahabah-who-conflicted-with-him-such-as-abu-dharr-ammar-ibn-yasir-and-abdullah-ibn-masud-radiya-llahu/ ]

এছাড়া উসমান (রা) এর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগগুলো জবাব এখানে পেয়ে যাবেন। [ (i) (ii) (iii) (iv) (v) ]

Back to top button